ব্রণ প্রতিরোধে ১০ খাবার


১. ত্বক সুস্থ রাখতে প্রচুর পানি পান করতে হবে। দেহের অভ্যন্তরে অক্সিজেন এবং পুষ্টি সরবরাহ করে পানি। এটি ত্বককে কোমল রাখার পাশাপাশি ব্রণ প্রতিরোধ করে।

২. অলিভঅয়েল লোশন ত্বকের ভেতরে প্রবেশ করে কিন্তু লোমকূপ বন্ধ করে না। ত্বকের শ্বাসপ্রশ্বাসে সহায়তা করে ব্রণ হতে দেয় না।

৩. লেমন জুস দেহের ভেতরে এসিডের উপাদান কমাতে সাহায্য করে। লিভার পরিষ্কার রাখার পাশাপাশি এনজাইম উৎপন্ন করে রক্তে বিষাক্ত উপাদান দূর করে। ত্বককে করে উজ্জ্বল এবং সতেজ।

৪. তরমুজ ত্বকের দাগ দূর করতে খুবই কার্যকর। ভিটামিন এ, বি এবং সি সমৃদ্ধ এই ফল ত্বককে রাখে সতেজ, উজ্জ্বল এবং আর্দ্র। এটি ত্বকের ব্রণ প্রতিরোধ এবং দাগ দূর করতে বেশ কার্যকর।

৫. স্বাস্থ্যোজ্জ্বল ত্বক পাওয়ার সবচেয়ে ভালো উপায় হচ্ছে সুষম খাবার খাওয়া। কম চর্বিযুক্ত খাবারের পাশাপাশি ভিটামিন এ স্বাস্থ্যোজ্জ্বল ত্বকের জন্য গুরুত্বপূর্ণ উপাদান।

৬. রাসবেরি জাতীয় ফল ভিটামিন, আঁশে ভরপুর। এগুলোতে সমৃদ্ধ পাইটোক্যামিকেল উপাদান রয়েছে, যা ত্বককে রাখে সুরক্ষিত। 

৭. টক দইয়ে অ্যান্টিফাঙ্গাল এবং অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল গুণ রয়েছে। এই উপাদানগুলো ত্বক পরিষ্কার রাখতে সাহায্য করে।

৮. নিয়মিত আখরোট খেলে ত্বক মসৃণ ও কোমল হতে সাহায্য করবে।

৯. বাদাম এবং বীজ জাতীয় খাবার সূর্যের ক্ষতি থেকে ত্বককে রক্ষা করতে বেশ কার্যকর ভূমিকা রাখে।

১০. আপেলে প্রচুর পেকটিনজাতীয় উপাদান রয়েছে, যা ব্রণের শত্রু।