চুলকানি, দাদ সমস্যা ভুগছেন? ব্যবহার করুন  ডার্মাসল অয়েনমেন্ট

চুলকানি, দাদ সমস্যা ভুগছেন? ব্যবহার করুন ডার্মাসল অয়েনমেন্ট


চুলকানি, দাদ সমস্যা ভুগছেন? ব্যবহার করুন 

ডার্মাসল অয়েনমেন্ট | Dermasol Ointment 

ক্লোবেটাসল প্রোপিওনেট [টপিকাল প্রিপারেশন]০.০৫% 

নির্দেশনা:

ক্লোবেটাসল প্রোপিওনেট প্রাপ্তবয়স্ক, বয়স্ক এবং ১ বছরের অধিক বয়সী শিশুদের নিম্নলিখিত ডার্মোটোসিস এর ক্ষেত্রে নির্দেশিত।

••সোরিয়াসিস (বিস্তৃত প্লাক সোরিয়াসিস ব্যতীত)

•রিক্যালসিট্রেন্ট ডার্মাটোসেস

•লিচেন প্লানাস

•ডিসকয়েড লুপাস এরিথেমাটোসাস 

•অন্যান্য ত্বকের চিকিৎসায়, যখন কম শক্তিশালী স্টেরয়েডগুলো দ্বারা সন্তোষজনক ফলাফল পাওয়া যায় না। 

ফার্মাকোলজি:

ক্লোবেটাসল প্রোপিওনেট একটি শক্তিশালী টপিকাল কর্টিকস্টেরয়েড। এর অ্যান্টি-ইনফ্লাম্যাটরি, অ্যান্টিপ্রুরিটিক এবং ভ্যাসোকনস্ট্রিকটিভ বৈশিষ্ট্য আছে। একাধিক প্রক্রিয়ার মাধ্যমে এটি অ্যান্টি- ইনফ্লাম্যাটরি কার্যকারিতা প্রকাশ করে যা পরবর্তী পর্যায়ের অ্যালার্জিক প্রক্রিয়াকে বাঁধা প্রদান করে। এটি মাস্ট সেল উৎপাদন এবং ইওসিনোফিলের কেমোট্যাক্সিস সক্রিয়করণ হ্রাস করে। এছাড়াও এটি সাইটোকাইন এর উৎপাদন হ্র্রাস করে এবং অ্যারাকিডোনিক অ্যাসিডের বিপাককে বাঁধা প্রদান করে।

ঔষধের মাত্রা:

প্রাপ্তবয়স্ক, বয়স্ক এবং ১ বছরের অধিক বয়সী শিশু: ক্লোবেটাসল প্রোপিওনেট ক্রিম অথবা অয়েন্টমেন্ট এর পাতলা আবরণ আক্রান্ত স্থানে মসৃন ভাবে দিনে দু’বার প্রয়োগ করতে হবে। প্রদাহের তীব্রতা নিয়ন্ত্রণে ক্লোবেটাসল প্রোপিওনেট এর স্বল্পমেয়াদী কোর্সের পুনরাবৃত্তি করা যেতে পারে। রেজিস্ট্যান্স জাতীয় প্রদাহে বিশেষ করে হাইপারকেরাটোসিসে ক্লোবেটাসল এর প্রদাহবিরোধী ক্রিয়া বৃদ্ধি করতে পলিথিন ফিল্মের অবরোধক এর মাধ্যমে ব্যবহার করা যেতে পারে। সন্তোষজনক ফলাফলের জন্য এক রাতের অবরোধক ব্যবহারই যথেষ্ট।

ক্লোবেটাসল প্রোপিওনেট অতি উচ্চ ক্ষমতার টপিকাল কর্টিকস্টেরয়েড, সুতরাং এর মাধ্যমে চিকিৎসা সাধারনত ২ সপ্তাহের মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখা উচিত। সর্বোচ্চ সাপ্তাহিক মাত্রা ৫০ গ্রাম এর বেশী হওয়া যাবে না। শিশুদের ক্ষেত্রে, সম্ভব হলে চিকিৎসা পাঁচ দিনের মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখা উচিত এবং সাপ্তাহিক ফলাফল পর্যালোচনা করা উচিত। 

সেবনবিধি প্রয়োগের স্থান: 

ত্বক। ক্রিম বিশেষভাবে আর্দ্র স্থানে ব্যবহারের জন্য উপযোগী। অয়েন্টমেন্ট বিশেষভাবে শুষ্ক, লিচেনিফাইড অথবা স্কেলি লেশন এর জন্য উপযোগী।

ঔষধের মিথষ্ক্রিয়া:

যে সকল ঔষধ (যেমনঃ রিটানোভির, ইট্রাকোনাজল) CYP3A4 এর ক্রিয়াকে বন্ধ করে তাদের সাথে একত্রে ব্যবহারে কর্টিকস্টেরয়েড এর বিপাকীয় ক্রিয়া বাধাগ্রস্থ হয় ফলে রক্তে কর্টিকস্টেরয়েড এর মাত্রা বেড়ে যেতে পারে।

প্রতিনির্দেশনা:

এই প্রিপারেশনের যেকোন উপাদানের প্রতি অতিসংবেদনশীল রোগীর ক্ষেত্রে এটি প্রতিনির্দেশিত। এটি রোসেসিয়া, একনি ভালগারিস, পেরিওরাল ডার্মাটাইটিস, পেরিয়েনাল এবং জেনিটাল প্রুরিটাস, প্রদাহ ছাড়া প্রুরিটাস, চিকিৎসা হয়নি এমন কিউটেনাস ইনফেকশনে ব্যবহার করা উচিত নয়। 

পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া:

সাধারণত পরিলক্ষিত পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া গুলো হচ্ছে জ্বালাপোড়া ও যন্ত্রণার অনুভব। কম পরিলক্ষিত পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া গুলো হচ্ছে চুলকানি, স্কিন অ্যাট্রফি, ত্বকের ক্রেকিং এবং ফিশারিং। টপিকাল ক্লোবেটাসল প্রোপিওনেটের দীর্ঘদিন ব্যবহারের ফলে শিশু এবং প্রাপ্ত বয়স্কদের ক্ষেত্রে কুশিং সিন্ড্রমের প্রতিবেদন পাওয়া গেছে।

সতর্কতা :

অক্লুসিভ ড্রেসিং ব্যবহারের ক্ষেত্রে, নতুন ড্রেসিং প্রয়োগের পূর্বে ত্বক ভালভাবে পরিষ্কার করা উচিত। সোরিয়াসিসের চিকিৎসায় টপিকাল কর্টিকস্টেরয়েডগুলি সতর্কতার সাথে ব্যবহার করা উচিত কারণ রোগের পুনারায় আক্রমন এবং ত্বকের প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা ক্ষতিগ্রস্থ হওয়ার কারণে লোকাল অথবা সিস্টেমিক বিষক্রিয়া হতে পারে। মুখে ব্যবহারের সময় চিকিৎসা ৫ দিনের মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখা উচিত। চোখের পাতায় ক্লোবেটাসল প্রোপিওনেট ব্যবহারের ক্ষেত্রে চোখ থেকে দূরে রেখে সতর্কতার সাথে ব্যবহার করতে হবে কারণ বার বার চোখের সংস্পর্শে আসার ফলে ছানি অথবা Glucoma হতে পারে। 

গর্ভাবস্থায় ও স্তন্যদানকালে:

গর্ভবতী মহিলাদের ক্লোবেটাসল প্রোপিওনেট ক্রিম ব্যবহারের সীমিত তথ্য রয়েছে। গর্ভবতী প্রাণীদের ক্ষেত্রে কর্টিকস্টেরয়েড ব্যবহারে Fetus গঠনের সমস্যা দেখা যায়। এই গবেষণার ফলাফলের সাথে মানব দেহের সংশ্লিষ্টাতা এখনও প্রতিষ্ঠিত নয়। যদি মায়েদের ক্ষেত্রে চিকিৎসার সম্ভাব্য ঝুঁকি অপেক্ষা প্রত্যাশিত ফলাফলের মাত্রা বেশী হলেই গর্ভাবস্থায় ক্লোবেটাসল প্রোপিওনেট ব্যবহার করা যেতে পারে।মাতৃদুগ্ধে এই ঔষধের নিঃসরণ সম্বন্ধে জানা যায়নি। যেহেতু অনেক ঔষধের নিঃসরণ মাতৃদুগ্ধে হয়ে থাকে, সেহেতু স্তন্যদানকারী মায়েদের ক্লোবেটাসল প্রোপিওনেট ক্রিম ব্যবহারের ক্ষেত্রে সতর্ক থাকা উচিত।

শিশু ও বয়স্কদের ক্ষেত্রে ব্যবহার:

১২ বছরের কম বয়সী শিশুদের ক্ষেত্রে দীর্ঘমেয়াদে ক্রমাগত টপিকাল কর্টিকস্টেরয়েড ব্যবহার করা উচিত নয়, কারণ অ্যাড্রিনাল সাপ্রেশন বেড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। টপিকাল কর্টিকস্টেরয়েড ব্যবহারে শিশুদের অ্যাট্রফিক জাতীয় পরিবর্তন দেখা দিতে পারে।

মাত্রাধিক্যতা:

তীব্র মাত্রাধিক্যতার সম্ভাবনা খুবই কম, তবুও ক্রনিক মাত্রাধিক্যতা ও ভুল ব্যবহারের ক্ষেত্রে হাইপার কর্টিসোলিজম হতে পারে। সেক্ষেত্রে টপিকাল স্টেরয়েড ব্যবহার বন্ধ করতে হবে।

MRP:75 TK

Order link

Share in Social Media